হুইল চেয়ারে বসে শেষবারের মত পুত্র আনিসের ঘুমন্ত মুখ দেখলেন বাবা


সম্রাট শাহজাহান বলেছিলেন ‘পৃথিবীতে ভারী বস্তু হচ্ছে পিতার কাঁধে সন্তানের লাশ। পৃথিবী থেকে বিদায় নেয়ার প্রস্তুতি ছিল ঢাকা উত্তরের অকাল প্রয়াত নন্দিত মেয়র আনিসুল হকের বর্ষীয়ান পিতা সৈয়দ মঈনুদ্দিন হোসাইনের।

আনিসুল হক প্রায়ই বাবাকে হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করিয়ে উদ্বেগে থাকতেন। গত কয়েক বছরে কয়েক দফা সুস্থ হয়ে তার পিতা বাসভবনে ফিরে এসেছেন। নিয়তির কি বিধান তাকেই শেষ পর্যন্ত তরতাজা প্রাণবন্ত সুদর্শন পুত্রের অকাল মৃত্যুতে শোকাবহ দৃশ্যই সইতে হয়নি!

হুইল চেয়ারে বসে অকালে চিরনিন্দ্রায় যাওয়া পুত্র আনিসের ঘুমন্ত মুখ দেখতে হয়েছে। আনিসুল হককেও তার একটি ছেলের অকাল মৃত্যুর লাশ কাঁধে নিতে হয়েছিল। ক্যান্সারে ঝড়ে পড়া সেই সন্তান ও মায়ের কবরে প্রতি শুক্রবার আনিসুল হক যেতেন। বনানী কবরস্থানে তারা শায়িত। সেই পুত্রের কবরেই আনিসুল হক চিরনিন্দ্রা নিচ্ছেন।

আনিসের মৃত্যু সংবাদ তার বাবাকে মরদেহ বাড়িতে না আনা পর্যন্ত জানানো হয়নি। কিন্তু শনিবার মরদেহ বাড়িতে আনলে সন্তানের কাছে শেষ দেখা দেখতে নিয়ে গেলে পিতা ছিলেন নির্বাক পাথরের মতো।

 

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*