যারা পর্নস্টার থেকে হলিউডের সুপারস্টার হয়েছেন…


চিত্রজগতের তারকারা যেন আক্ষরিক অর্থেই দূর আকাশের তারা। কিন্তু সবসময়ই কি তারা এমনটাই ছিলেন? মোটেই না। তাদের শুরুটাও ছিল আর দশজন সাধারণ মানুষের মতই। আজকের অবস্থানে পৌঁছানোর জন্য তাদের কঠোর পরিশ্রম করতে হয়েছে। স্বীকার করতে হয়েছে অজস্র আত্মত্যাগ। তেমনটাই করেছেন এমন দুর্দান্ত কয়েকজন অভিনেতা-অভিনেত্রী, যাদের নাম শুনলে পাঠক বিস্মিত না হয়ে পারবেন না। চলুন জেনে নেয়া যাক বর্তমানের তুমুল জনপ্রিয় এমন কয়েকজন তারকার ব্যাপারে যাদের শুরুটা হয়েছিল পর্ন তারকা হিসেবে, কিংবা ক্যারিয়ারের এক পর্যায়ে পর্ন ছবিতে অভিনয় করেছেন।

Image result for hollywood superstars

১। অ্যাডাম ওয়েস্ট: যাকে বলা হয়ে থাকে ‘প্রকৃত ব্যাটম্যান’, তিনি পর্ন ছবিতেও মুখ দেখিয়েছেন। হ্যাঁ, ওয়েস্ট সত্যি সত্যিই বেশ কিছু পর্ন ছবিতে অভিনয় করেছেন। কিন্তু তাকে কখনোই সরাসরি যৌনকর্মে লিপ্ত হতে দেখা যায়নি অবশ্য!

২। সিলভেস্টার স্ট্যালোন: অস্কারজয়ী স্ট্যালোন, যিনি ‘রকি’ সিরিজে অভিনয় ও পরিচালনা করে জনপ্রিয়তার চূড়ায় পৌঁছেছিলেন, তিনি ক্যারিয়ারের শুরুতে অভিনয় করেছিলেন যৌনতাপূর্ণ চলচ্চিত্র ‘দ্য পার্টি অ্যাট কিটি অ্যান্ড স্টাডস’-এ। ‘রকি’ সিরিজের মাধ্যমে জনপ্রিয় হওয়ার পর প্রযোজকেরা এই ছবির নতুন নাম দেন ‘ইটালিয়ান স্ট্যালোন’।

৩। ক্যামেরন ডায়াজ: ১৯ বছর বয়সে ডায়াজ একটি সফটকোর পর্ন ছবিতে অভিনয় করেছিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি আয় করা অভিনেত্রীদের একজন ডায়াজ এটি নিয়ে খুবই বিব্রত ছিলেন, এবং ১৯৯৪ সালে ‘দ্য মাস্ক’ ছবির মাধ্যমে খ্যাতি পাওয়ার পর তিনি সেই পর্ন ছবিটির স্বত্ব কিনে নেন যাতে সেটি কেউ আর কখনও দেখতে না পারে।

৪। কিম কারদাশিয়ান: গুজব শোনা যায় যে কারদাশিয়ানের মা ক্রিস জেনার নিজেই নাকি মেয়ের প্রাক্তন প্রেমিক জেন রের সাথে সেক্সটেপ ফাঁস করে দেন, এবং তার উদ্দেশ্য ছিল মেয়েকে লাইমলাইটে নিয়ে আসা। তা তিনি সত্যিই করতে পেরেছিলেন। সেই সেক্সটেপের কল্যাণে সবার মুখে মুখে ঘুরতে শুরু করে কারদাশিয়ানের নাম।

৫। ম্যাট লেব্ল্যাংক: সর্বকালের অন্যতম সেরা টিভি সিটকম ‘ফ্রেন্ডস’-এর কথা কে না জানে। সেই সিরিজের মজার চরিত্র জোয়ির কথা মনে আছে? সেই জোয়ি চরিত্রে অভিনয় করা ম্যাট লেব্ল্যাংকের ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল সফটকোর পর্নের মাধ্যমে। ‘রেড শু ডায়রিজ’ নামের একটি শো টাইম সিরিজে অভিনয় করেছিলেন তিনি।

৬। মেরিলিন মনরো: এই তালিকায় মনরোর নাম দেখে অনেকেই রেগে যেতে পারেন। এ কথায় অবশ্যই কোন ভুল নেই যে মনরো কখনো কোন পর্ন ছবিতে অভিনয় করেননি। কিন্তু একইসাথে এ কথাও সত্য যে গত শতকের ‘সেক্স সিম্বল’ মনরো তার ক্যারিয়ার জুড়ে নগ্ন বা অর্ধনগ্ন হয়ে পোজ দিয়েছেন, এমন ফটোশ্যুটের সংখ্যাও নেহাত কম নয়!

৭। আর্নল্ড শোয়ার্জনেগার: আপনি যদি একজন বিশ্ববিখ্যাত বডিবিল্ডার হন, আপনার শরীরের প্রতি দর্শকের একটা দুর্দমনীয় আকর্ষণ তো থাকবেই। আর তাই শোয়ার্জনেগার শুধু সাতবারের মিস্টার অলিম্পিয়া বিজয়ীই নন, বেশ কয়েকবার নগ্ন হয়ে নিজের শরীর দেখিয়েছেন ‘ব্লুবয় ম্যাগাজিনেও।

৮। প্যারিস হিল্টন: ২০০৪ সালে তার সেক্সটেপ ‘ওয়ান নাইট ইন প্যারিস’ মুক্তি পায় এবং গোটা বিশ্বজুড়ে তা নিয়ে তুমুল সাড়া পড়ে যায়। এমনকি ‘পারিবারিক বন্ধু’ ডোনাল্ড ট্রাম্পও তার স্ত্রী মেলানিয়ার সাথে বসে এটি দেখেন এবং তিনি এতটাই মুগ্ধ হন যে কয়েকদিন আগে একটি সাক্ষাৎকারেও এটির উল্লেখ করেন।

৯। ডেভিড ডুচোভনি: এক্স ফাইলস ও ক্যালিফর্নিকেশন তারকা ডুচোভনি ম্যাট লেব্ল্যাংকের সাথে একই সিরিজে সফটকোর পর্ন করেছিলেন। এরপর তিনি একটি পূর্নদৈর্ঘ্য পর্ন ছবিতেও অভিনয় করেন, এবং শো টাইমে যৌনতা বিষয়ক একটি অনুষ্ঠানেরও সঞ্চালনা করেন।

১০।  জ্যাকি চ্যান: মার্শাল আর্ট এক্সপার্ট, চ্যাপস্টিক জিনিয়াস কত নামেই না ডাকা হয় তাকে। পাশাপাশি আড়ালে আবডালে পর্নস্টার বলেও ডাকেন অনেকে। কারণ ‘দ্য কারাটে কিড’ হিসেবে দর্শকনন্দিত হওয়ার আগে ৭০ এর দশকে তিনি রগরগে এডাল্ট কমেডি ‘অল ইন দ্য ফ্যামিলি’তে অভিনয় করেছিলেন।

 

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*