জামিন পেলেন কাটালুনিয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী

প্রথমে ইউরোপীয়, তারপর আন্তর্জাতিক সমন জারি হবার পর কাটালুনিয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কার্লেস পুজদেমন আর ঝুঁকি নেননি৷ রবিবার মন্ত্রিসভার চার প্রাক্তন সদস্যের সঙ্গে তিনি বেলজিয়ামের পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেন৷ তবে সে দিনই তাঁরা জামিনে মুক্তি পেয়েছেন৷ জামিনের সঙ্গে বেশ কিছু শর্তও জুড়ে দেওয়া হয়েছে৷ নিজেদের ঠিকানা জানানোর পাশাপাশি তাঁরা আপাত বেলজিয়াম ছেড়ে চলে যেতে পারবেন না৷ ১৫ দিন পর পরবর্তী শুনানি পর্যন্ত তাঁরা মুক্ত থাকবেন বলে ধরে নেওয়া হচ্ছে৷ বেলজিয়ামের কর্তৃপক্ষকে ৬০ দিনের মধ্যে তাঁদের প্রত্যর্পণের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে৷ ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যে প্রত্যর্পণের এমন অনুরোধ সাধারণত প্রত্যাখ্যান করা হয় না৷

স্পেনের আদালতে পুজদেমন-সহ কাটালুনিয়ার প্রাক্তন প্রশাসনের শীর্ষ সদস্যদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ, দেশদ্রোহ, তহবিল তছরুপসহ একাধিক মামলা চলছে৷ অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাঁদের ৩০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে৷ স্পেনের আদালতের নির্দেশ অমান্য করে গত সোমবার পুজদেমন ও তাঁর প্রাক্তন মন্ত্রিসভার চার সদস্য বেলজিয়ামে পালিয়ে যান৷ প্রবল রাজনৈতিক চাপের কারণে স্পেনে তাঁদের ন্যায়বিচার সম্ভব নয় বলে তিনি দাবি করছেন৷

শনিবার এক টুইট বার্তায় তিনি বেলজিয়ামের পুলিশের সঙ্গে সহযোগিতার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন৷ রবিবার কাটালুনিয়ার একাধিক শহরে প্রতিবাদকারীরা আঞ্চলিক নেতাদের মুক্তির দাবি জানিয়েছেন৷ তবে বার্সেলোনায় মাত্র ৩৫০ বিক্ষোভকারী উপস্থিত ছিলেন বলে পুলিশ জানিয়েছে৷ সারা শহরে নেতাদের মুক্তির দাবিতে পোস্টার ছেয়ে গেছে৷

আগামী ২১শে ডিসেম্বর কাটালুনিয়ার আগাম নির্বাচনে নিজের কর্তৃত্ব আবার ফিরে পেতে চান পুজদেমন৷ তিনি এই নির্বাচনে অংশ নেবার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন৷ উল্লেখ্য, কাটালুনিয়ার নিয়ন্ত্রণ ফেডারেল সরকারের হাতে তুলে নেবার সময় স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাখোই এই নির্বাচনের ঘোষণাও করেছিলেন৷ স্বাধীনতাকামী দলগুলি এই নির্বাচনে একজোট জোট হয়ে লড়তে পারে বলে পুজেমনের দল ইঙ্গিত দিয়েছে৷ তবে জনমত সমীক্ষা অনুযায়ী এই জোট সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে না৷

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*